১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,সকাল ১১:১৯

শিরোনাম
গুম-খুনের রাজনীতির শুরু জিয়ার হাতেই -তথ্যমন্ত্রী দেশবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে -শ ম রেজাউল করিম অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের গৌরব সমুন্নত রাখতে সাংস্কৃতিক আন্দোলন জোরদার করতে হবে :টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী রাজনৈতিক সরকারের সিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়নে সমন্বয়ের দায়িত্বে সচিববৃন্দ -তথ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকলে দলকে বেশি দায়িত্ববান হতে হয় -ড. হাছান মাহমুদ ক্ষমতা নিষ্কন্টক করতে জিয়াউর রহমান হাজার হাজার বৃক্ষও ধ্বংস করেছেন -তথ্যমন্ত্রী দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল বিএনপি -তথ্যমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ‘মাইনাস’ করার জন্যই কি বিদেশে নেয়ার আবেদন! তথ্যমন্ত্রী যা বললেন বিষোদগার নয়, একসাথে মানুষের পাশে -তথ্যমন্ত্রী

গোবিন্দগঞ্জে মানব পাচার অপরাধ দমন আাইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করে ফেসে গেলন আবু ছালাম

প্রকাশিত: মার্চ ২২, ২০২১

  • শেয়ার করুন

গোবিন্দগঞ্জে মানব পাচার অপরাধ দমন আাইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করে ফেসে গেল আবু ছালাম। বিজ্ঞ আদালতের রায়ে বাদীর বিরুদ্ধে ২১১ দঃবিঃ ধারায় মামলা দায়েরের নির্দেশ
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মানব পাচার অপরাধ দমন আইন অপরাধের অভিযোগে ছালাম মাষ্টার কোর্টে পিটিশন মামলা ১১২/২০১৮ দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত মামলাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য গোবিন্দগঞ্জ থানায় ২০১৮ সালে প্রেরণ করেন।থানাকর্তৃপক্ষ ৩ জন আসামি কে গ্রেফতার করে রিমান্ডের জন্য আদালতে আবেদন দাখিল করেন।

ভিকটিম স্বর্ণা সাবালিকা দাবি করেন এবং পুলিশের কাছে মানব পাচারের ঘটনাকে মিথ্যা বলে উল্লেখ করেন। থানার এফ আই আর নং ৩৬/৩৬ তারিখঃ ২৯/০১/২০১৯ইং জি আর নং ৩৬/২০১৯ মামলাটি গোবিন্দগঞ্জ থানায় ২০০০সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংসধনী ২০০৩ এর ৭/২০৩০ ধারায় অপরাধে মামলা দায়ের করে আসামিদের কে মিথ্যা ভাবে হয়রানি করে। বাদি ছালাম স্বজ্ঞানে প্রকৃত ঘটনাকে ধামাচাপা দিয়ে অন্যায় ভাবে আসামিদের বিরুদ্ধে মানব পাচারের মিথ্যা ঘটনার সৃষ্টি করে। মামলার
বাদী -আসামি মানিক মিয়া, জবেদ আালী, আবেদ আলী গং দের হেনস্তা করতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত প্রতিবেদনে জানা যায়, এজাহার নামিয় আসামী মোঃ মেহেদী হাসান @ মানিক, মেলেজা বেগম,সুজন মিয়া,জবেদ আলী,আবেদ আলী,মিলন মিয়া,মনোয়ারা বেগম, সবুজ মিয়া,সোহেল মিয়া,রশীদা বেগম,আমিরুল ইসলাম সকলের থানা গোবিন্দগঞ্জ জেলা গাইবান্ধাদের বিরুদ্ধে বাদির আনিত অভিযোগ প্রমাণের স্বপক্ষে কোন সাক্ষ্য প্রমাণ পাওয়া যায় নাই। আসামি দের বিরুদ্ধে ২০১২ সালের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনের ৩/৭/৮/১৪ ধারা অপরাধের কোন সত্যতা পাওয়া যায় নাই।

সমুদ্বয় সাক্ষ্য প্রমাণ প্রাপ্ত তথ্য এবং ঘটনার পারিপার্শ্বিকতার আলোকে এজাহার নামিয় সকল আসামি দের বিরুদ্ধে কোন প্রকার সাক্ষ্য প্রমাণ না পাওয়ায় আসামি দের কে আমলা হইতে অব্যাহতি দান সহ বাদি – আসামিদের হয়রানি করার লক্ষ্যে মিথ্যা এজাহার দায়ের করায় বাদির বিরুদ্ধে দঃ বিধির ২১১ ধারা মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিজ্ঞ আদালতে চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিলের অনুমতি স্বারক নং ১১৪৪(২)/ ভি তারিখ ০৩/০৫/২০১৯ মুলে প্রদান করেন। সেই মোতাবেক অত্র মামলাটি দীর্ঘদিন অহেতুক মুলতবি না রাখিয়া বর্ণিত আসামীদেরকে অত্র মামলার দায় হতে অব্যাহতি দান সহ মামলাটি নিষ্পত্তির লক্ষ্যে গোবিন্দগঞ্জ থানার চুড়ান্ত রিপোর্ট মিথ্যা নং ২৪ তারিখ ০৩/০৫/২০১৯ ইং ধারাঃ ২০১২ সালের মানব পাচার প্রতিরোধ দমন আইনের ৩/৭/৮/১৪ বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করিয়াছেন।

বাদি আসামি দের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় বাদির বিরুদ্ধে দঃবিঃ ২১১ ধারা মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণের প্রতিবেদন দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। বাদি জানিতে পারিয়া সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞআদালতে তদন্ত রিপোর্টের বিরুদ্ধে নারাজি পিটিশন দাখিল করেন। উক্ত মানব পাচার মামলা নং ০৩/২০১৯ বিজ্ঞ আদালত বিচার এ গোবিন্দগঞ্জ থানা সিরিয়াল নং ৮৭/২০২০ গাইবান্ধা মানব পাচার অপরাধ দমন ট্রাইবুনাল-২, জেলা এন্ড শেসন জজ এর আাদেশ নং- ১৪ তারিখ ১৪/৯/২০২০ এ সকল আসামিদের অব্যাহতি দিয়ে জি আর নং ৩৬/২০১৯ is disposeed of accordingly. জেলা পুলিশ সুপার গাইবান্ধা এবং অফিসার ইনচার্জ গোবিন্দগঞ্জ থানাকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন বলে মামলা সুত্রে জানা গেছে।

মিথ্যা মামলা দায়েরকারী মোঃ আবু ছালাম পিতাঃ আব্দুস ছাত্তার সাং হরিরামপুর তিনি পেশায় একজন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। প্রকৃত ঘটনা তারমেয়ে সাদিয়া সুলতানা স্বর্ণা একই ইউনিয়নের বড়দহ পূর্বপাড়া গ্রামের মোঃ জবেদ আলীর পুত্র মোঃ মেহেদী হাসান @ মানিককে ভালবেসে বিবাহ করে।

মানিক মিয়ার পরিবারকে হেনস্তা করতে মিথ্যা ধর্ষন,অপহরণ ও মানব পাচারের অভিযোগে কয়েকটি মামলা দায়ের করেন। যে মিথ্যা মামলা গুলোর কারণে মানিক ও তার পরিবারের সদস্যদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে বলে সাদিয়া সুলতানা স্বর্ণা কান্না জরিত কন্ঠে মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে জানান।

তিনি আরও জানান, তার সুখের সংসারে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে তার পিতা ও কুচক্রী মহল। তিনি তার সুখের সংসার নিঃষ্কন্ঠক করতে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়াসহ মিথ্যা মামলা দায়ের কারী মোঃ আবু ছালাম কে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

  • শেয়ার করুন