১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,রাত ৩:০৩

শিরোনাম
গুম-খুনের রাজনীতির শুরু জিয়ার হাতেই -তথ্যমন্ত্রী দেশবিরোধী অপশক্তির ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে -শ ম রেজাউল করিম অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের গৌরব সমুন্নত রাখতে সাংস্কৃতিক আন্দোলন জোরদার করতে হবে :টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী রাজনৈতিক সরকারের সিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়নে সমন্বয়ের দায়িত্বে সচিববৃন্দ -তথ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকলে দলকে বেশি দায়িত্ববান হতে হয় -ড. হাছান মাহমুদ ক্ষমতা নিষ্কন্টক করতে জিয়াউর রহমান হাজার হাজার বৃক্ষও ধ্বংস করেছেন -তথ্যমন্ত্রী দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল বিএনপি -তথ্যমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ‘মাইনাস’ করার জন্যই কি বিদেশে নেয়ার আবেদন! তথ্যমন্ত্রী যা বললেন বিষোদগার নয়, একসাথে মানুষের পাশে -তথ্যমন্ত্রী

দশ বছরে দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত: মার্চ ১, ২০২১

  • শেয়ার করুন

‘জাতির পিতা আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছেন। কিন্তু অর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করে যেতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করার কাজ করে যাচ্ছেন। গত দশ বছরে দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী হয়েছে।’

জাতীয় বীমা দিবস উপলক্ষে সোমবার (১ মার্চ) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, উন্নত দেশে সব ধরনের সম্পদের বীমা রয়েছে। বাংলাদেশের অর্থনীতিও এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতি আরো শক্তিশালী করতে, দেশের সকল সরকারি সম্পদ বীমার আওতায় আনার কাজ করছে বর্তমান সরকার।

তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে জীবন বীমা খাত। এক্ষেত্রে জীবন বীমার প্রিমিয়াম জনগণের সক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে।
যে দেশের বীমা খাত যতো শক্তিশালী সে দেশের অর্থনীতি ততো শক্তিশালী উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, অর্থনীতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রধানমন্ত্রী দেশের বীমা খাতের উন্নয়নে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশের বীমা খাত উন্নয়নে নানা ভূমিকা পালন করছেন। বর্তমান সরকারের আমলেই বীমা আইন-২০১০ প্রণয়ন করা হয়েছে। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ গঠন করা হয়েছে। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বীমা খাতের উন্নয়নে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নে আরো জোড়ালো ভূমিকা রাখতে হবে।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, আজ থেকে ৪০ হাজার বছর আগে পৃথিবীর লোক সংখ্যা ছিল ১০ কোটি। এসব মানুষ মধ্যপ্রাচ্যে টাইগ্রিস নদীর এপারে, ওপারে বসবাস শুরু করেন। এসব মানুষ কৃষিনির্ভর ছিলেন। এ সময় ব্যাবিলনে প্রথম বীমার প্রচলন হয়। প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে শস্য বীমার প্রচলন করা হয়। আধুনিক বিশ্বে লয়েডস’র মাধ্যমে ইংল্যান্ডে বীমার প্রচলন হয়।

  • শেয়ার করুন