সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:৪৮ অপরাহ্ন

দশ বছর আগের পুলিশের সক্ষমতা আর আজকের সক্ষমতা এক নয়-ডিআইজি রংপুর রেঞ্জ

অনলাইন ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৩৭ Time View
সুুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ ধর্মের দোহাই দিয়ে কেউ যদি নাশকতা আর বিশৃঙ্খলা করতে চায় তাহলে পুলিশ কঠোরভাবে তা দমন করবে। দশ বছর আগের পুলিশের সক্ষমতা আর আজকের সক্ষমতা এক নয়। বর্তমানে অপরাধীদের দমনে পুলিশের সক্ষমতা অনেকগুন বেড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. আব্দুল বাতেন বিপিএম, পিপিএম।
শনিবার (১৯ আগস্ট) সন্ধ্যায় গাইবান্ধা জেলা পুলিশের আয়োজনে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। অপরাধীদের ভয় না পেয়ে পুলিশকে তথ্য দেওয়ার আহবান জানিয়ে ডিআইজি আব্দুল বাতেন বলেন, জনগণের সহযোগিতা ছাড়া সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গিবাদ সহজে নির্মূল করা সম্ভব নয়। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে হলে অবশ্যই পুলিশের পাশে আপনাদেরকে থাকতে হবে। অপরাধীদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে পারলেই সবধরনের অপরাধ কমে আসবে। অপরাধীদের তথ্য পুলিশকে দিলে পুলিশ অবশ্যই সমাজ থেকে সকল ধরনের অপরাধ নির্মূল করতে পারবে। ২০১৩ সালের চার পুলিশ সদস্যের হত্যাকারীদের বিচার না হওয়ার ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, দশ বছরেও আমার চার পুলিশ ভাইয়ের হত্যাকাণ্ডের বিচার না হওয়া অত্যান্ত দুঃখজনক। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই এ হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্য সম্পন্ন করার দাবী করেন গাইবান্ধা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে ডিআইজি আব্দুল বাতেন আরও বলেন, পুলিশের পায়ের জুতা থেকে মাথার টুপি, নামি-দামি গাড়ী সব জনগণের টাকায়। এটা পড়ে মাস্তানি বা বিলাসীতার জন্য নয়। জনগণকে সেবা দেওয়ার জন্যই আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে কেউ যদি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে বাধা দেয় তাহলে তা কঠোর হস্তে পুলিশ দমন করবে।
সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম সরকার লেবু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ-নূর-এ আলম।
সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজমিরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিসেস আফরুজা বারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা এমদাদুল হক বাবলু প্রমূখ।
এর আগে জেলা পুলিশের একটি চৌকস দল প্রধান অতিথিকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। শেষে ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি নিহত চার পুলিশ সদস্যের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
মতবিনিময় সভায় গাইবান্ধা জেলা পুলিশের কর্মকর্তাবৃন্দ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাধারণ মানুষ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category